বাংলিশকে বর্জন করতে বলেছেন একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা – মুজিবুর রহমান দিলু

আমি মানুষের মাঝে বাঁচতে চাই চির দিন।নিজেকে ভালোবাসি প্রথমে তারপর যেটুকু থাকে সমানভাগে ভাগ করি পরিবারের সবার মাঝে।ভীষণ নস্টালজিয়ায় ভুগি মাঝে মাঝে।দারুন ভাবে।আমি মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গর্ববোধ করি।নিজের সাথে সাথে চাই অন্যকে হাসাতে।অসাধারণ উজ্জজীবনী শক্তি সম্পন্ন এই কথাগুলো বললেন অসামান্য নাট্যশিল্পী ও অসীম সাহসী মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমান দিলু।তাঁর জন্ম ১৯৫৫ সালের ৬ই নভেম্বার চট্টগ্রামে।বড় হয়েছেন ঢাকায়।

 

১৯৬০ সাল থেকে ঢাকায় বসবাস করছেন।ঢাকা কলেজ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। এই মহান স্বাধীনতা অর্জনে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাঁর দানের প্রতি স্রদ্ধা জানিয়ে সম্প্রতি BDtimes24.com- কে দেয়া তার মহামূল্যবান সাক্ষাতকারটিতুলে ধরা হল।

 

আপনি তো একজন মুক্তিযোদ্ধা তার সাথে একজন নাট্যব্যক্তিত্ব তো আপনার কি মনে হয় ,এখনকার বাংলা নাটক ভবিষ্যতের দিশারী হতে পারবে?

-না্‌,মনে হয় না।

 

এই ব্যাপারে যদি আপনার কোন মতামত বা অভিমত থাকে তা কি জানাবেন আমাদের?

-আমাদের হাজার বছরের সংস্কৃতি,ঐতিহ্য এবং আমাদের মানুষের জীবন যাপনের ধারার সঠিক চিত্রটা তুলে ধরতে হবে নাটকে।আমরা যে যোদ্ধা জাতি,তা উঠে আসতে হবে।আমাদের হাসি-কান্না,আমাদের আনন্দের জীবনের ঘনিষ্ঠ কাহিনীর উপরে নাটক নির্মাণ প্রয়োজন।কালজয়ী বাংলা গল্প এবং উপন্যাসের নাট্যরূপ এই সময়ে অনেক প্রয়োজন।বাংলায় কথা বলা শিখতে হবে অভিনেতাদের।বাংলিশকে বর্জন করতে হবে।আমাদের সাহিত্য,নাটক অনেক পরিপূর্ণ এটা প্রমাণ করা দরকার।কিছু কথা বলে কিছু মজা করলেই নাটক হয় না এটা বোঝা দরকার।

 

আপনার বর্তমান প্রচারিত নাটকগুলো কি কি এবং সেগুলো কোন চ্যানেলে প্রচারিত হচ্ছে?

-কিছুদিন আগে আমার লেখা,আমার পরিচালনা এবং অভিনয়ে MY TV তে ২৬ পর্বের ‘তামাশা’ এবং গত ১৬ই ডিসেম্বর মোহনা টিভিতে ৪০ মিনিট করে ৩ পর্বের বিশেষ নাটক ‘অর্জন একাত্তুর’ প্রচারিত হয়েছে।

 

আশির দশকের টিভি পর্দায় আপনাদের নাটকগুলো এখনো মানুষের মনের ভেতরে জাগ্রত আছে…সেগুলোর মধ্যে কোন নাটকের কথা আপনার বেশি মনে পড়ে?

-যতগুলো নাটকে অভিনয় করেছি প্রায় সবগুলো নাটকই মানুষের মনে দাগ কেটেছে।সংশপ্তক,তথাপি, লালমাটি কালো ধোঁয়া নাটকগুলো আর নিজের একক অভিনয় করা সেই এক মানুষ,নীলপানীয়,পুরুষ …আরও অনেক সব এই মুহূর্তে মনে আসছে না।

 

এমন কি কোন চরিত্র আছে যে চরিত্রটা আপনি নিজে করতে পেলে আনন্দ পেতেন?

-আমার মঞ্চ নাটক আন্টনি চেকওভার ‘সোয়ান’ গানটার প্রধান চরিত্রটা যদি টিভির জন্য পারফর্ম করতে পারতাম।

 

যদি নাট্য অভিনেতা না হতেন তাহলে কি হতে চাইতেন?

-অনেক কিছুই হতে চেয়েছিলাম কিন্তু কি হতে পারলাম জানি না তবে চাকরি ছেড়ে যদি একটা মিডিয়া প্রোডাকশন হাউজ করতে পারতাম,জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত যদি অভিনয়,লেখা আর পরিচালনার সাথে থাকতে পারতাম তাহলে জীবনের অর্থ খুঁজে পেতাম কিন্তু কে আমাকে এই দয়া করবে?

 

আপনার প্রিয় অভিনয় শিল্পী?

-গ্যাগোরি পেক,পিটার অতুল,নানা পটেকার,সুবর্না মোস্তফা, হুমায়ূন ফরিদি।

 

কোন চলচিত্রে কাজ করেছেন কি?

-বাংলাদেশের সর্বপ্রথম স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচিত্রে অভিনয় করেছি এবং জয়েন্ট ভেনচার ফ্রেঞ্চের সাথে ফিচার ফিল্ম ‘ডেসটিনেশন চিটাগং’ এর একটি অন্যতম প্রধান চরিত্রে কাজ করেছি বাংলা আর ইংলিশ দুই ভার্সনেই।

 

আপনি তো নাটক তৈরি করেছেন, তো ভবিষ্যতে কি চলচিত্র নির্মাণের ইচ্ছা আছে?

-আমার শেষ ইচ্ছা মুক্তিযুদ্ধের আসল কাহিনীর উপর ছবি নির্মাণ করব যা এখনো কেউ করে নি।যেহেতু আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা আমার অভিজ্ঞতার উপর নির্মাণ করব সেই ছবি।

 

বর্তমান দর্শক ও নির্মাতাদের উদ্দেশে কিছু বলুন।

-আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এই দেশের যারা সুস্থ ধারায় চলচিত্র নির্মাণ করছেন কিন্তু চলচিত্রের গভীরতা বোঝাতে পারছেন না তাদের বুঝতে হবে ডিজিটাল প্রযুক্তি মানে এই না যে সময় নিজে কাজ না করে তাড়াঘুরো করে ছবি বানানো এবং ফিচার ফিল্ম বলে দাবি করা।এটা ঠিক না।এটা না হচ্ছে ছবি না হচ্ছে নাটক, একটা মিক্সড কিছু হচ্ছে।

 

আপনাকে অনেক ধন্যবাদ সময় দেয়ার জন্য।

-তোমাদেরও ধন্যবাদ। আমি আসলে ‘স্বপ্ন দেখি সোনার বাংলার।বেঁচে থাকতে সম্মান পেতে চাই।মানুষের ভালোবাসায় নতুন জীবন পেয়েছি।সেইজন্যে সবাইকে আবারো ধন্যবাদ।আবার একবার জেগে উঠতে চাই অভিনয় দিয়ে।নিয়মিত অভিনয় করতে চাই যতক্ষণ পর্যন্ত জীবন আছে।এক মেয়ে,দুই ছেলে আর আমার প্রিয় স্ত্রী আমার জীবনের আলো।আলোকিত থাকতে চাই যতদিন আছি।

 

………কথার মাঝে হারিয়ে গিয়েছিলাম। একজন মুক্তিযোদধার পক্ষেই এভাবে বলা সম্ভব। যারা আমাদের দিয়েছেন একটি স্বাধীন দেশের সম্মান, তাঁদের শক্তি ও অব্যয় অক্ষয় নিষ্ঠাকে অনুকরণ করবার প্রত্যয় নিয়ে দেশ গড়তে এগিয়ে যাব এমনটি ভেবেই আবার ফিরে এলাম বর্তমানে।

পরিশেষে পরম শ্রদ্ধেয় মুজিবুর রহমান দিলুর প্রতি সম্মান জানিয়ে এবং তাঁর ও তারঁ পরিবারের সুস্বাস্থ্য কামনা করে শেষ করছি।

Facebook Comments
Spread the love
  • 3
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    3
    Shares